২৬ শে মার্চ এর বক্তব্য, ছবি, কবিতা, কিছু কথা

২৬ শে মার্চ এর বক্তব্য-দিনটি স্বাধীনতা দিবস হওয়ায় ২৬শে মার্চ কাটে নানা  উৎসবে। দেশের বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান হয়। আর পরিবেশন করা হয় বিভিন্ন দেশাত্মবোধক গান। আর এসব কার্যক্রম শুরু হয় শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন ও পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্থপতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও পাকিস্তানি শত্রুদের হাত থেকে দেশকে মুক্ত করার জন্য সংগ্রাম করেছেন। বাংলাদেশের স্বাধীনতার ডাক দেওয়ার মূল কারণ ছিল এদেশের জনগণকে পাকিস্তানিদের শাসন ও শোষণ থেকে রক্ষা করা। ধর্মের ভিত্তিতে দেশ ভাগের পর ভারত ভাগ হয়ে একটি নতুন রাষ্ট্রের সূচনা হয় যার নাম ছিল পাকিস্তান।

আবার এই পাকিস্তান দুটি ভিন্ন ভূখণ্ডে অবস্থিত ছিল। যা পূর্ব পাকিস্তান ও পশ্চিম পাকিস্তান নামে পরিচিত। পূর্ব পাকিস্তান সংখ্যাগরিষ্ঠ হওয়ার পরও তারা তাদের সকল নাগরিক সুবিধা থেকে বঞ্চিত ছিল। আর পূর্ব পাকিস্তানের টাকায় পশ্চিম পাকিস্তান গড়ে উঠছিল। 1970 সালের নির্বাচনে পূর্ব পাকিস্তানের আওয়ামী লীগ বিপুল ভোটে জয়লাভ করে। কিন্তু তৎকালীন পশ্চিম পাকিস্তান সরকার তাদের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর না করে দখল করতে চেয়েছিল।

আর ক্ষমতা হস্তান্তরের পরিবর্তে তারা শুধু তাদের শোষণ বাড়ায়। আর এটাই স্বাধীনতা সংগ্রামের সূচনা। স্বাধীনতা যুদ্ধের ক্ষেত্রে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ মার্চের সেই ঐতিহাসিক ও যুগান্তকারী ভাষণের গুরুত্ব অপরিসীম। কারণ তিনি তাঁর এই একমাত্র ভাষণের মাধ্যমে সমগ্র বাঙালি জাতিকে ঐক্যবদ্ধ করতে পেরেছিলেন। আর এই ভাষণের মাধ্যমে তিনি যুদ্ধের ডাকও দিয়েছিলেন।

সর্বোপরি, ২৬ শে মার্চ মহান স্বাধীনতা দিবসের মধ্য দিয়ে আমরা যেমন আমাদের স্বাধীনতা উদযাপন করি, আমরা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাই এবং আমাদের সকলের এই দিনটির প্রতি অঙ্গীকারবদ্ধ হওয়া উচিত যাতে আমরা আমাদের স্বাধীনতা সংগ্রাম এবং স্বাধীনতা দিবসের মর্যাদা বিশ্বের কাছে উপস্থাপন করতে পারি। . আমি পারি. স্বাধীনতা দিবসের গৌরব ও সংগ্রামকে নতুন প্রজন্মের কাছে তুলে ধরতেও আমাদের সচেষ্ট হতে হবে। আর যারা মুক্তিযুদ্ধের বিরুদ্ধে কাজ করেছে তারা আজও এই স্বাধীনতার গৌরবকে কলঙ্কিত করতে চাইছে। তাই আমাদের সবাইকে স্বাধীন বাংলাদেশের স্বাধীন নাগরিক হিসেবে তাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম চালিয়ে যেতে হবে যাতে তারা কোনোভাবেই সফল হতে না পারে।

26 মার্চ, 2022 স্বাধীনতা দিবস

২৬শে মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবস। ১৯৭১ সালের ২৬শে মার্চ জিয়াউর রহমান স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। স্বাধীনতা শব্দের পেছনে রয়েছে দীর্ঘ ইতিহাস। যাইহোক, 1971 সাল থেকে 26 মার্চ বাংলার মানুষ স্বাধীনতা দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে। 2021 ছিল স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী। অর্থাৎ বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার ৫০ বছর হয়ে গেল। এই সুবর্ণজয়ন্তীতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা উদযাপন করেন। 26 মার্চ, 2022 বাংলাদেশের 51তম স্বাধীনতা দিবস। দিবসটি ঘিরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রয়েছে নানা পরিকল্পনা। আমরা বিভিন্ন সামরিক ও সামাজিক কর্মসূচির মধ্য দিয়ে স্বাধীনতা দিবস উদযাপন করি।

২৬ মার্চ এর ছবি

২৬ শে মার্চ

 

Leave a Comment